২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ রাত ২:৪৩

সড়কে ফুটপাতে সরানো ছিটানো ব্যানার পোস্টার: নিরব বিসিসি কর্তৃপক্ষ

বিশেষ প্রতিবেদক:-
  • আপডেট সময়ঃ বুধবার, জুন ১৪, ২০২৩,
  • 152 পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদক

নির্বাচন শেষ হওয়ার দু’দিন পরও নগরীর সড়কে ফুটপাত ও অলিগলিতে যত্রতত্র সরানো ছিটানো ব্যানার পোস্টারে দূষিত হচ্ছে পরিবেশ, ব্যহত হচ্ছে স্বাভাবিক পথচলা। অথচ এসব দেখেও না দেখার ভান করছে বরিশাল সিটি করপোরেশন (বিসিসি) কর্তৃপক্ষ। তাদের দাবী এগুলো প্রার্থীরাই সরাবেন, তা না হলে আইনগত ব্যবস্থা নেবেন। আর প্রার্থীদের অনেকেই বলছেন, এটা সরাবার দায়িত্ব সিটি কর্পোরেশনের, আমাদের নয়।
১৪ জুন বুধবার বরিশাল নগরী ঘুরে দেখা গেছে এই চিত্র। গত ১২ জুন সোমবার এখানে বিসিসি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে এবং সরকার দলীয় প্রার্থী আবুল খায়ের আব্দুল্লাহ খোকন সেরনিয়াবাত বিপুল ভোটে জয়ী হয়ে বিসিসি’র নতুন মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। কিন্তু দায়িত্ব গ্রহণের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন না হওয়া পর্যন্ত চতুর্থ পরিষদের মেয়র ও তার পরিষদই দায়িত্ব পালন করছেন বরিশালে। যে কারণে নির্বাচন শেষ হওয়া মাত্রই নগরীর পরিচ্ছন্নতার দায়িত্ব পালন করবেন চতুর্থ পরিষদের প্রশাসন এটাই নিয়ম বলে জানালেন ২৩ নং ওয়ার্ডের সাবেক ও নব নির্বাচিত কাউন্সিলর এনামুল হক বাহার। তিনি বলেন, প্রার্থীদের অনেকেই পরাজিত হয়ে মন খারাপ কিম্বা যারা জয়ী হয়েছেন তাদের নানান ব্যস্ততা বেড়েছে। যে কারণে তারা তাদের ব্যানার পোস্টার সরানোর প্রতি আগ্রহহীন হয়ে পরে।
এ সময় একজন পরাজিত প্রার্থী বলেন, আমরা সিটি কর্পোরেশনকে ট্যাক্স দেই কি নিজেরা সরানোর জন্য। তাহলে তাদের কাজ কি?
এদিকে এসব ব্যানার পোস্টারের কারণে বড় গাড়ি চলাচলে সমস্যা সৃষ্টি ছাড়াও শহরের সৌন্দর্য ও পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। পথে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন পথচারীরাও। নগরীর রূপাতলী থেকে নথুল্লাবাদ মহাসড়কসহ জিলা স্কুলের সামনের সড়কে, সিটি কর্পোরেশনের ভবন এলাকায়, বাংলা বাজার, নতুন বাজার, বটতলা মোড় ইত্যাদি প্রতিটি স্থানে ব্যানার পোস্টারের ছড়াছড়ি দেখা গেছে বুধবার বিকেলেও। রয়েছে প্রার্থীদের প্রচারণা ক্যাম্পগুলোও। জিলা স্কুলের সামনে পোস্টার বাধা রসিতে পা পেচিয়ে পরে যাওয়া একজন বয়স্ক নাগরিক অভিযোগ করেন, এগুলো এখনো সরায় না কেন? দেখনতো ঝড় বৃষ্টিতে ভিজে রসি ছিঁড়ে সড়কের কি বেহাল অবস্থা করেছে।
তিনি আরো বলেন, সিটি কর্পোরেশনের চতুর্থ পরিষদের লোকজন কি করছে? গত কদিন তো তাদের কোনো কাজকর্মই চোখে পড়েনি। নির্বাচন শেষ হওয়া মাত্রই তো এগুলো পরিষ্কার করা উচিত ।
এসময় সড়কের বিভিন্ন স্থানে ছিড়ে যাওয়া দড়িতে ভেজা পোস্টার, পলিথিন মোড়ানো পোস্টার, লিফলেট ইত্যাদি পরে থাকতে দেখা গেছে।
এদিকে বিবির পুকুর পাড়ের এনেক্স ভবনে সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্ন শাখায় অভিযোগ দিতে গিয়ে কাউকেই খুঁজে পাওয়া যায়নি বলে জানালেন আমতলার মিরাজ। তার বাড়ির পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থায় গত প্রায় একবছর ধরে সমস্যা হচ্ছে বলে জানান তিনি। স্থায়ী সমাধান না হওয়ায় মাঝেমধ্যে সিটি করপোরেশনের লোক ধরে এনে কাজ করাতেন তিনি। গত তিনচার দিন কাউকে খুঁজে না পেয়ে নিজেই পরিচ্ছন্ন বিভাগে যান ও কাউকে না পেয়ে ফিরে আসেন বলে জানান মিরাজ।
নগর চিন্তাবিদদের একজন ও বরিশাল অর্থনীতি সমিতির সভাপতি কাজী মিজানুর রহমান বলেন, সিটি নির্বাচনে ব্যবহৃত লাখ লাখ ব্যানার পোস্টার, বিলবোর্ড এখন অপ্রয়োজনীয় জঞ্জাল হিসাবে ঝুলছে। শেষ বিকেলের ঝড় বৃষ্টির কারনে কিছু মাটিতে গড়াগড়ি খাচ্ছে। পরিবেশ দুষণ করা এসব বর্জ্য দ্রুত অপসারণ জরুরি। নালা, নর্দমা, খাল সর্বত্রই এগুলি ছড়িয়ে পরে জলাবদ্ধতার দুর্ভোগ আরও বাড়িয়ে দিবে। যার দায়িত্বের মধ্যেই পড়ুক না কেন অবিলম্বে এগুলি অপসারণ অত্যাবশ্যক। প্লাস্টিক কভারযুক্ত হওয়ায় পোড়ালে বাতাস দুষণ হবে। বিশেষজ্ঞগণের পরামর্শ নিয়ে জনস্বার্থে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানান কাজী মিজানুর রহমান।
অন্যদিকে মশার জ্বালাতনে অস্থির নগরীর রসুলপুর ও পলাশপুর এলাকার বাসিন্দারা। তারাও গত কয়েকদিন ধরে সিটি করপোরেশনের কোনো কর্মীকেই দেখেন নাই বলে অভিযোগ করেছেন।
যদিও এসব অভিযোগ অস্বীকার করে সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসনিক  কর্মকর্তা স্বপন কুমার দাস বলেন, ভোটের দিন ছাড়া প্রতিদিনই মশা নিধন কার্যক্রম অব্যাহত ছিলো, আজো পরিচ্ছন্ন বিভাগের কর্মীরা মশার ওষুধ ছিটাচ্ছে সবখানে।
তিনি আরো বলেন, ব্যানার পোস্টার সরানোর দায়িত্ব প্রার্থীদের। নির্বাচন কমিশন আইনানুযায়ী একজন প্রার্থী তার নিজের ব্যানার পোস্টার সরিয়ে নেবেন। তা না হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান বিসিসির এই কর্মকর্তা।
এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের রিটার্নিং কর্মকর্তা হুমায়ুন কবীর বলেন, এমন কোনো বিধিমালা নির্বাচন কমিশনের নেই। এটা যে বলেছেন, ভুল বলেছেন।
তিনি আরো বলেন, নির্বাচন শেষ হওয়ার পরপরই শহর পরিচ্ছন্ন করার দায়িত্ব সিটি কর্পোরেশনের।

সংবাদটি শেয়ার করুন ...

এই বিভাগের আরো সংবাদ...
© All rights reserved © ২০২৩ স্মার্ট বরিশাল
EngineerBD-Jowfhowo