২৫শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ বিকাল ৩:১১

কেন্দ্রীয় যুব মহিলা লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে বরিশালের তানিয়া আরজুমান্দ ববি

বরিশাল অফিস:
  • আপডেট সময়ঃ সোমবার, জুলাই ১৭, ২০২৩,
  • 145 পঠিত

আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুব মহিলা লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। কমিটিতে জায়গা পেয়েছেন মোট ১৬৩ জন। এরমধ্যে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম সংগঠনের সবশেষ সম্মেলনের দিনে ঘোষণা করা হয়েছিল।

সম্মেলনের প্রায় সাত মাস পর রোববার (১৬ জুলাই) আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার নির্দেশক্রমে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এ কমিটির অনুমোদন করেন।
কমিটিতে ২১ জনকে সহ-সভাপতি করা হয়েছে। তারা হলেন- জেসমিন শামীমা নিঝুম, শারমিন জাহান মেরী, শামীমা চৌধুরী বিথী, অ্যাড. খোদেজা নাছরীন এমপি, আশরাফুন্নেছা পারুল, সেলিনা রহমান, সৈয়দা মোনালিসা, নাদিরা পারভীন লাকী, শামীমা আক্তার দোলা, সালমা ভূইয়া চায়না, সীমা ইসলাম, জাকিয়া সৃজনী শিউলী, শাহানাজ আক্তার রুনা, রাশেদা পারভীন মনি, নাজমা বেগম রত্না, মির্জা রাফিয়া আক্তার, বীণা চৌধুরী, মিতু আক্তার, মেহের নাজ আক্তার নাহিদা, শামীমা আরা নিগার।
কমিটিতে ৮ জনকে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে। তারা হলেন- জেসমিন আক্তার নীপা, বিউটি কানিজ, রাবেয়া শহীদ, কামরুন্নাহার সুমী, তানিয়া সুলতানা হ্যাপী, তানিয়া হক শোভা, নিলুফা ইয়াসমিন সম্পা ও উছমিন আরা বেলী।
কমিটিতে সহ-সভাপতি পদে জায়গা পেয়েছেন ২১ জন। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক ৮ জন করে, বিভিন্ন সম্পাদক পদে ৪১ জন এবং সদস্য পদে রাখা হয়েছে ৮২ জনকে।
অপরদিকে যুব মহিলা লীগের সহ-মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান বরিশালের মেয়ে তানিয়া আরজুমান্দ ববি নির্বাচিত হয়েছেন। জানা গেছে, তানিয়া আরজুমান্দ ববির পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম শাহাবুদ্দিন আহমেদ সাবু বরিশাল সরকারি সৈয়দ হাতেম আলী কলেজ ছাত্রলীগের নাট্য সম্পাদক এবং ১৯৭৩ ইং সালে একই কলেজের ভিপি নির্বাচিত হয়েছিলেন।মাতা বেগম মমতাজ বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগ বরিশাল জেলা শাখার সদস্য।
তার আপন চাচা বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম নাসির উদ্দীন আহমেদ ছিলেন একাধারে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনৈতিক বিশ্লেষক, যিনি ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে ১৯৬৬ সালে সরকারী ব্রজমোহন কলেজের ছাত্র সংসদে নাট্য বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত হন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঘোষিত বাঙালির মুক্তির সনদ ৬দফা আন্দোলনে বরিশাল জেলা সংগ্রাম পরিষদের সক্রিয় সদস্য ছিলেন, মুক্তিযোদ্ধা পূণর্বাসন সংস্থার সাবেক সভাপতি ছিলেন তিনি এবং সমাজ সেবক হিসেবে ব্যাপক পরিচিতি রয়েছে। তানিয়া আরজুমান্দ ববির আর এক চাচা বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম নুরুল হক মোল্লাও পারিবারিক ভাবে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত থেকে সংগঠনের জন্য কাজ করে গেছেন।যুব মহিলা লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির সহ মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে স্থান পাওয়া তানিয়া আরজুমান্দ ববির আপন চাচাতো ভাই বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম নাসির উদ্দীন আহমেদ এর একমাত্র ছেলে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ এর সাবেক সহ-সম্পাদক আহমেদ রুবাইয়াত ইফতেখার বাবু আওয়ামী লীগের দূ সময়ে রাজপথে থেকে আন্দোলন সংগ্রাম (তৎকালীন সময়ের বিএনপি জামায়াত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমল) থেকে শুরু করে অদ্যবদি নিরলসভাবে সাংগঠনিকভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।
পারিবারিক ভাবেই আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে তিন জন বীর মুক্তিযোদ্ধা বাবা, চাচা এবং সরাসরি রাজনৈতিক ভাবে সম্পৃক্ততার এমন একটি পরিবার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে গোটা দেশে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত থেকে সংগঠনের জন্য কাজ করে যাওয়ার বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগের কেন্দ্রীয় পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে সহ-মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে তানিয়া আরজুমান্দ ববি স্থান পেয়েছেন।
গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর সম্মেলনে সংগঠনের সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন ডেইজী সারোয়ার, আর সাধারণ সম্পাদক হন শারমিন সুলতানা লিলি।

সংবাদটি শেয়ার করুন ...

এই বিভাগের আরো সংবাদ...
© All rights reserved © ২০২৩ স্মার্ট বরিশাল
EngineerBD-Jowfhowo