১৮ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ রাত ১০:৫০

দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা হয়নি

বার্তা ডেক্স:
  • আপডেট সময়ঃ শুক্রবার, আগস্ট ২৫, ২০২৩,
  • 207 পঠিত

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তারিখ ঘোষণার দাবিটি ভিত্তিহীন

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দাবি করে ছড়ানো তারিখটি মূলত ২০১৮ সালের অনুষ্ঠিত একাদশ সংসদ নির্বাচনের প্রথম তফসিল।

সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকের একাধিক পেজ, আইডি থেকে পোস্ট করে দাবি করা হচ্ছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। পোস্টগুলোতে একটি গ্রাফিক পোস্টারে লেখা রয়েছে, নির্বাচনে ভোট ২৩ ডিসেম্বর, মনোনয়ন দাখিল ১৯ নভেম্বর, মনোয়নপত্র বাছাই ২২ নভেম্বর, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৯ নভেম্বর। এরকম কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে এবং এখানে।

গত ৪ মে ‘M.J. Mahadi Hassan’ নামের একটি ফেসবুক আইডি থেকে পোস্ট করে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তারিখ সম্বলিত গ্রাফিক পোস্টারের ক্যাপশনে লেখা হয়, “দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২৩ শে ডিসেম্বর ২০২৩ ইং…!! জয় বাংলা জিতবে আবার নৌকা”।

বুম বাংলাদেশ যাচাই করে দেখেছে, ফেসবুক পোস্টগুলোতে করা দাবিটি সঠিক নয়। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দাবি করে ছড়ানো তারিখটি মূলত ২০১৮ সালের অনুষ্ঠিত একাদশ সংসদ নির্বাচনের প্রথম তফসিল। যা পরে পুনঃতফসিল ঘোষণা করে ভোট গ্রহণের তারিখ পিছিয়ে দেয়া হয়।

কি-ওয়ার্ড ধরে সার্চ করার পর, বিডিনিউজ২৪ ডটকমে “তফসিল ঘোষণা, ভোট ২৩ ডিসেম্বর” শিরোনামে একটি খবর খুঁজে পাওয়া যায়, যা ২০১৮ সালের ৮ নভেম্বর প্রকাশিত হয়েছে। খবরটি থেকে জানা যায়, ২৩ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণের দিন ধার্য করে একাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন তৎকালীন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা। ২০১৮ সালে ঘোষিত ওই তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র জমা ১৯ নভেম্বর পর্যন্ত, তা বাছাই হবে ২২ নভেম্বর, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৯ নভেম্বর। এর ২৩ দিন পর ভোটগ্রহণের কথা জানানো হয়। দেখুন–

সার্চ করার পর, বাংলাদেশের নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটেও ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে সময়সূচির প্রজ্ঞাপন’ শিরোনামে একটি প্রাজ্ঞাপন খুঁজে পাওয়া যায়, যা ২০১৮ সালের ৮ নভেম্বর প্রকাশিত হয়েছিল। দেখুন–

পরে অবশ্য একাদশ সংসদ নির্বাচন এক সপ্তাহ পিছিয়ে ২৩ ডিসেম্বরের পরিবর্তে ৩০ শে ডিসেম্বর নির্ধারণ করে পুনঃতফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। যা মূলধারার সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয় এবং নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটেও পুনঃতফসিলের প্রজ্ঞাপন খুঁজে পাওয়া যায়।

২৩ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণের দিন ধার্য করে ঘোষিত একাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিলের উল্লেখিত মনোনয়নপত্র জমা, বাছাই, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ দেখে নিশ্চিত হওয়া যায়, মূলত এই তফসিলকেই বিভ্রান্তিকরভাবে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা বলে দাবি করা হচ্ছে।

দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা হয়নি

আবার, একাধিকবার সার্চ করেও দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা সংক্রান্ত কোনো প্রজ্ঞাপন খুঁজে পাওয়া যায়নি। বর্তমান সাধারণত সংবিধান অনুযায়ী, সংসদের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগের ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করতে হয়। ফলে যথাসময়ে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা মেনে বাংলাদেশের নির্বাচন কমিশন তফসিল ঘোষণা করে থাকে। কিন্তু দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনের এখন পর্যন্ত তফসিল ঘোষণা হয়নি।

অর্থাৎ দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করার দাবিটি ভিত্তিহীন।

সুতরাং ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত একাদশ সংসদ নির্বাচনের প্রথম তফসিলের দিন তারিখ পোস্ট করে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা হয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে সামাজিক মাধ্যমে, যা সঠিক নয়।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন ...

এই বিভাগের আরো সংবাদ...
© All rights reserved © ২০২৩ স্মার্ট বরিশাল
EngineerBD-Jowfhowo