১৮ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ রাত ৯:৫৭

হলদে খামের চিঠি জমে না আর লাল আবেগের বাক্সে

এম.এস.আই লিমন:-
  • আপডেট সময়ঃ সোমবার, মে ১, ২০২৩,
  • 96 পঠিত

এম.এস.আই লিমন//

একটা সময় মনের ভাব আদান প্রদানের একমাত্র মাধ্যম ছিল চিঠি। শুধু কলমের কালিই নয়, যেন মন গহীনের শত আবেগ দিয়ে প্রিয়জনের কাছে লেখা হত এই চিঠি। আর এমন চিঠি পেতে প্রাপকের সময় লেগে যেত দিনের পর দিন আবার কখনোবা মাস পেরিয়ে বছর। আর এসব চিঠি আদান প্রদান করা হত ডাক বিভাগের এই বাক্সে। ডাক বিভাগের এসব চিঠি বহন করে কাঙ্খিত ঠিকানায় পৌছে দিতেন একজন ডাক পিয়ন। আর তাইতো তখন প্রাপকদের মধ্যে অনেকেই প্রিয়জন নয় যেন অপেক্ষা করতো ডাক পিয়নের। শুধু চিঠিই নয় ডাক বিভাগের মাধ্যমে লেনদেন করা হত অর্থও। শত আবেগের এই বাক্সটি দু দশক আগেও প্রিয়জনের খুশির কারণ ছিল তবে আজ আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে জৌলুশ হারিয়েছে লাল আবেগের এই বাক্সটি। ওয়াটসআপ, ইমু মেসেঞ্জার কিংবা ইমেইলেই এখন ভাবের লেনদেন হচ্ছে। এখন আর এই বাক্সে ফেলা হয়না চিঠি। অযত্নে অবহেলায় পড়ে থাকা বাক্সটি এখন শুধুমাত্র স্মৃতিই বহন করে।

দেশের অন্যতম সরকারী এই প্রতিষ্ঠান ডাক বিভাগ শুধুমাত্র চিঠিই বহন করতো না চিঠি বহনের পাশাপাশি এক স্থান থেকে অন্য স্থানে মালামাল বহন করেও নিয়ে যেত আর তখনকার সময় মানুষের কাছে কম খরচে মালামাল আনা নেওয়ার একমাত্র বিশ্বস্ত প্রতিষ্ঠান ছিল এটি। বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর সাথে পাল্লা দিতে পারছেনা ডাক বিভাগ। আধুনিকায়নের অভাব আর জনবল সংকটের কারণে দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে এক সময়কার জনপ্রিয় এই সরকারি প্রতিষ্ঠানটি।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন ...

এই বিভাগের আরো সংবাদ...
© All rights reserved © ২০২৩ স্মার্ট বরিশাল
EngineerBD-Jowfhowo