২৮শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ দুপুর ১২:৪৯

মসজিদ মাদরাসার জমি আত্নসাতের চেষ্টা ( কমিটিকে ফাঁসাতে সামসু ও সাইফুল এর কুট কৌশল)

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময়ঃ শনিবার, মে ৬, ২০২৩,
  • 58 পঠিত

মসজিদ কমিটিতে স্থান না পেয়ে জুম্মার দিন মসজিদের ভিতরে হট্টগোল এবং নিজ সমর্থক ও জনতার হাতে লাঞ্চিত হয়েছে হিজলা উপজেলার বিএনপি সদস্য সাইফুল হোসেন এবং মোঃ সামসু (ওরফে কসাই সামসু)। ঘটনা অন্যদিকে প্রবাহিত করতে উল্টো প্রতিপক্ষ বর্তমানে বাদামতলী জামে মসজিদ কমিটির ১নং সদস্য ও স্থানীয় ইউনিয়ন আ,লীগ সভাপতি আহসান হাবিব হিরন হাওলাদার বর্তমান কমিটির সভাপতি লোকমান হাওলাদারসহ অন্যন্যদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চালাচ্ছে বলে জানা গেছে। অথচ ঘটনার সময় বর্তমান মসজিদ কমিটির সভাপতি সরকারি হিজলা কলেজের রাষ্ট্রজ্ঞিানের প্রভাষক লোকমান হাওলাদার ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলনা। স্থানীয় মুসুল্লিদের সাথে কথা বলে জানা গেছে। ০৫ মে হিজলা উপজেলার বড়জালিয়া গ্রামের বাদামতলী জামে মসজিদে আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর সহধর্মীনির রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া এবং মিলাদের আয়োজন করেন বড়জালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামিলীগ এর সভাপতি আহসান হাবিব হিরন হাওলাদার। উক্ত মিলাদে উপস্থিত ছিলেন হিজলা উপজেলা আওয়ামিলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলতাফ মাহামুদ দিপু,গুয়াবাড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামিলীগ সভাপতি তালাত মাহমুদ নিপু, বড়জালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামিলীগ সাধারন সম্পাদক মোশাররফ তালুকদার, উউপজেলা যুবলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান সরদার,উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সাধারন সম্পাদক, ছাত্রলীগ এবং কৃষক লীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক সহ বিভিন্ন ওয়ার্ডের নেতাকর্মীরা। মিলাদ শেষে মসজিদ এবং মাদরাসা পরিচালনা কমিটি নিয়ে কথা তুলেন হিজলা বি এনি পি সদস্য খাদেম বেপারী এবং প্রাক্তন বি এন পি ক্যাডার সাইফুল, কসাই শামসু, শিবির ক্যাডার ওমর ফারুকসহ ছাত্রদল এবং যুবদলের বেশ কিছু ক্যাডার। তাদেরকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনার কথা বলার পরেও তারা বড়জালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামিলীগ আয়োজিত মিলাদে বিঘœ ঘটানোর উদ্দেশ্য হট্রোগল শুরু করে। এসময় উপস্থিত জনতা ইয়াবা ব্যাবসায়ী কসাই শামসুর উপরে চড়াও হয় এবং ধাক্কা ধাক্কির একপর্যায়ে দোকানের টিনে লেগে কসাই শামসুর পিঠে আঘাত লাগে। প্রত্যক্ষদশী ও স্থানীয়রা জানায়, ইয়াবা ব্যাবসায়ী কসাই সামসু এবং জামাত শিবির এবং বি এন পির ক্যাডারদেরকে ইন্ধনদাতা হিসেবে নেপথ্যে কলকাঠি নাড়ছে পংকজ নাথের অনুসারী প্রধান ক্যাডার রিপন খান। সুত্র মতে, হিজলা উপজেলাধীন বড়জালিয়া ইউনিয়নে সংহতি স্কুলের নিকটে মাদরাসা মসজিদের কমিটি নিয়ে বিরোধের মুল কারন, মোঃ খাদেম হোসেন ব্যাপারির বাবা মানিক ব্যাপারি মাদ্রাসায় জমি দান করেছে,সেই জমি ছেলে অন্যত্র বিক্রি করেছে, যা সম্পুর্ন আইন বিরোধি। জানা গেছে ভুয়া কাগজপত্র তৈরী করে খাদেম হোসেন ও তার ভাই এই জমিটি গোপনে বিক্রি করে দেয়। মাদরাসা এবং মসজিদ কমিটি একই হওয়ার কারনে কমিটির সদস্যরা জমি বুঝে নিতে গেলে খাদেম এবং তার সাংপাঙরা মসজিদ কমিটি ভেঙ্গে দেয়ার পায়তারা চালায় ,সেই সুত্র ধরে পরিকল্পিতভাবে এই ঘটনা ঘটিয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। জমি বুঝে নিতে গেলে জমি বুঝিয়ে দিতে তাল বাহানা করে এবং নতুন কমিটি দাবি করে, শুক্রবার বাদ জুম্মা আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এর সহধর্মীনি মরহুম সাহানা আবদুল্লাহ এর রুহের মাগফেরাত কামনা করে বড়জালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করে,অনুষ্ঠানের প্রারম্ভে মোঃ খাদেম হোসেন বেপারি নতুন কমিটির দাবি করলে দোয়া অনুষ্ঠান শেষে বড়জালিয়া উইনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আহসান হাবিব হিরন হাওলাদার মসজিদ কমিটির ১নং সদস্য হওয়ার কারণে নতুন কমিটি দাবিদার এর পক্ষে উপস্থিত মুসল্লীদের সমর্থন চান। এ সময় মোট ৪১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির মধ্যে মাএ ৫ জনের সমর্থন পাওয়া যায়, তখন পরবর্তীতে এই বিষয়ে আলোচনা করা হবে বলে দোয়া অনুষ্ঠান শেষে মিষ্টি বিতরণ করে কার্য ক্রম শেষ করা হয়,পরবর্তীতে মসজিদে বাহিরে পরিকল্পিতভাবে কসাই সামসু বেপারি এক জটলার সৃষ্টি করিলে কে বা কাহারা তাকে মারধর করে। বিষয়টি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার উদ্দেশ্যে সামসু ব্যাপারি প্রথমে মুলাদি এবং পরে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি হয় এবং ইউনিয়ন আ,লীগ সভাপতি আহসান হাবিব হিরন হাওলাদার এবং অন্যান্য আ,লীগ নেতাদের নামে মিথ্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জোনা গেছে। এছাড়া বরিশালের স্থানীয় পত্রিকার সাংবাদিকদের নিকট মিথ্যা তথ্য দিয়ে সংবাদ পরিবেশন করেছে। অপরদিকে হিরন হাওলাদার এবং আরও কয়েকজন আ,লীগ নেতাদের সেল ফোনে দেখে নেয়ার হুমকি দিচ্ছে বলেও জানা গেছে। এ বিষয়ে মোঃ সামসুর সেল ফোনে একাধিকবার কল হলে তা রিসিভ করেনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন ...

এই বিভাগের আরো সংবাদ...
© All rights reserved © ২০২৩ স্মার্ট বরিশাল
EngineerBD-Jowfhowo